ঢাবির ভর্তি যোগ্যতায় পরিবর্তন আসতে পারে

প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

করোনা পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এবারের ভর্তি পরীক্ষায় যোগ্যতার ক্ষেত্রে পরিবর্তন আসতে পারে। বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র এ তথ্য জানায়। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নির্ভর করছে এইচএসসির মূল্যায়নের ফল প্রকাশের পর।

প্রতি বছর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে এসএসসি ও এইচএসসির মোট জিপিএ’র একটি নির্দিষ্ট পয়েন্ট ধরা হয়। ইউনিটভিত্তিক আলাদা যোগ্যতার মাপকাঠি ধরা হয়। গত বছর 'ক' ইউনিটে অংশগ্রহণের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৮.০০ থাকা আবশ্যক ছিল এবং পৃথকভাবে দুটির যে কোনো একটিতে ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ থাকা বাধ্যতামূলক ছিল। 'খ' ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.০০ এবং দুটির একটিতে সর্বনিম্ন ৩.০০ থাকা বাধ্যতামূলক। 'গ' ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.৫০ এবং দুটির একটিতে সর্বনিম্ন জিপিএ ৩.৫০ থাকা বাধ্যতামূলক।

'ঘ' ইউনিটে মানবিকের পরীক্ষার্থীদের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.০০; বিজ্ঞানের পরীক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৮.০০ এবং ব্যবসায় শিক্ষা পরীক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে। না হলে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারতেন না।

'চ' ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৬.৫০ এবং পৃথকভাবে দুটি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০০ থাকা আবশ্যক। এসএসসি ও এইচএসসির ফলে চতুর্থ বিষয়সহ জিপিএ গণ্য করা হয়।

ঢাবির সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম জানিয়েছেন, চলতি বছরেই ন্যূনতম জিপিএ নির্ধারণে পরিবর্তন আসতে পারে। করোনা পরিস্থিতির কারণে সবকিছু ভিন্নভাবে চিন্তা করতে হচ্ছে। এখনও এইচএসসির মূল্যায়নের ফল প্রকাশ করা হয়নি। আলোচনার মাধ্যমে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।