রাজধানীর মোহাম্মদপুরের রায়েরবাজারে সাবেক স্বামীর ছুরিকাঘাতে ঝর্ণা আক্তার (২৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। এর পর থেকে অভিযুক্ত সোহাগ পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে হত্যায় ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি আবদুল লতিফ জানান, রায়েরবাজারের মেকআপ খান রোডের একটি বাড়ির নিচতলায় থাকতেন ঝর্ণা। তার দু’টি মেয়ে রয়েছে। মাসখানেক আগে স্বামীর সঙ্গে তার বিচ্ছেদ ঘটে। তখন থেকে সোহাগ আলাদা হয়ে তার বাবা-মার সঙ্গে থাকতে শুরু করেন। তবে শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে তিনি সাবেক স্ত্রীর বাসায় যান। তখন ঝর্ণা ছিলেন বাথরুমে। তিনি বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রথমে শিল (পাটায় মশলা পেষার কাজে ব্যবহৃত) দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা হয়। এরপর তার বুকে-পেটেসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করেন সোহাগ। বাসার অন্যরা এগিয়ে আসার আগেই তিনি পালিয়ে যান।

ওসি জানান, নিহত ঝর্ণার গ্রামের বাড়ি বরিশালের মুলাদী। সোহাগ শাক-সবজি বিক্রি করেন। তার বাড়ি মাদারীপুরের শিবচরে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ঝর্ণার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।