সাগরপথে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার চেষ্টা, ২৬৯ রোহিঙ্গা আটক

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

সাগরে নিজেদের নৌকা ডুবিয়ে সাঁতরে মালয়েশিয়ার তীরে উঠার চেষ্টাকালে ২৬৯ জন রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করেছে দেশটির নৌবাহিনী। সোমবার ভোরে উত্তরাঞ্চলীয় কেদাহ রাজ্যের লঙকাওয়ি দ্বীপের সাগর থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

নৌবাহিনী জানিয়েছে, আটক রোহিঙ্গারা আন্তর্জাতিক জলসীমায় এসে নিজেদের নৌকা ইচ্ছাকৃতভাবে ভেঙে ও ডুবিয়ে সাঁতরে তীরে উঠার চেষ্টা করেছিল। ওই নৌকা থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এসব রোহিঙ্গারা কোথা থেকে সাগর পাড়ি দিয়েছে, তা স্পষ্ট করেনি কর্তৃপক্ষ। খবর দ্য স্টার মালয়েশিয়ার

মালয়েশিয়ার নিরাপত্তা সংস্থা ন্যাশনাল টাস্ক ফোর্স (এনটিএফ) জানিয়েছে, সোমবার ভোরে আন্তর্জাতিক জলসীমা থেকে সাঁতরে মালয়েশিয়ার লঙকাওয়ি দ্বীপে ওঠার চেষ্টা করছিলেন ৫৩ জন রোহিঙ্গা। তাদের সহ অদূরে সমুদ্রে ভাসমান ভাঙা নৌকা থেকে আরো ২১৬ জনকে আটক করে মালয়েশিয়ান মেরিটাইম এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি (এমএমইএ)। ওই নৌকা থেকে রোহিঙ্গা নারীর মরদেহও উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার ২৬৯ জন রোহিঙ্গার মধ্যে ৮০ জন পুরুষ , ১৩৮ জন নারী ও ৫১ জন শিশু।

এনটিএফ এক বিবৃতিতে জানায়, রোববার রাতে লঙকাওয়ি পুলিশের নৌশাখার কমান্ডারের কাছে তথ্য আসে যে, সমুদ্রে ভাসমান একটি নৌকা মালয়েশিয়ার জলসীমায় প্রবেশের চেষ্টা করছে। নৌকাটিকে মালয়েশিয়ায় প্রবেশে বাধা দিতে দুটি জাহাজ পাঠানো হয়। ভোর চারটার দিকে নৌকাটিকে খুঁজে পেয়ে এটিকে আন্তর্জাতিক জলসীমায় পাঠানোর প্রস্তুতি নেন নৌবাহিনীর সদস্যরা। তবে এ সময় নৌকাটি থেকে ৫৩ জন রোহিঙ্গা লাফিয়ে সমুদ্রে নেমে তীরের দিকে সাঁতরাতে থাকেন। 

এমএমইএ সদস্যরা তাদের গ্রেপ্তার করেন জানিয়ে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, রোহিঙ্গাদের নৌকাটি ডুবন্ত অবস্থায় ছিল। ইচ্ছাকৃতভাবেই নৌকাটির বিভিন্ন স্থানে ছিদ্র করা হয়েছিল। তাই নৌকাটির ক্ষতির পরিমাণ দেখে মানবিক কারণে নৌকাটিকে লঙকাওয়ি নিয়ে যাওয়া হয়। নৌকার সবাইকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধার করা মরদেহ এবং গ্রেপ্তার ২৬৯ জনকে পরবর্তীতে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এনটিএফ জানিয়েছে, গত মে থেকে এ নিয়ে সাঁতরে মালয়েশিয়ায় আসার চেষ্টাকালে প্রায় ৪০০ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে তারা। 

অভিবাসীদের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় সম্প্রতি স্থল ও জলসীমায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে মালয়েশিয়া। এর আগে গত ১৬ এপ্রিল একটি নৌকা প্রায় ২০০ রোহিঙ্গাকে নিয়ে দেশটিতে প্রবেশের চেষ্টা করলে তাদের কিছু মানবিক সহায়তা দিয়ে আবার আন্তর্জাতিক জলসীমায় তাড়িয়ে দেয় মালয়েশিয়ার নৌবাহিনী। 

এসব রোহিঙ্গারা মিয়ানমার নাকি বাংলাদেশ থেকে সাগর পাড়ি দিচ্ছে তা স্পষ্ট নয়। তিন বছর আগে মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর নির্মম নিপীড়নের মুখে দেশটি থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম।