গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু সারা জীবন দেশ ও সাধারণ মানুষের স্বার্থে জীবন বাজি রেখে সংগ্রাম করেছেন। তিনি কখনো ক্ষমতা ও অর্থ লোভে বিবেক বিক্রি করেন নাই। দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও মানবাধিকার কায়েম করার লক্ষ্যেই ১৯৯৩ সালে গণফোরাম প্রতিষ্ঠা করা হয়। এখন দেশে এসব অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। 

মঙ্গলবার রাজধানীর মতিঝিলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় অনলাইনে অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান। 

ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা মোহসীন মন্টু, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, অ্যাডভোকেট মো. হেলালউদ্দিন, লতিফুল বারী হামিম প্রমুখ।

গণতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় তরুণ প্রজন্মসহ দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে মোস্তফা মোহসনি মন্টু বলেন, 'মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি। প্রতিবেশ ভারত আমাদের বন্ধু। তাদের কাছে বন্ধুসুলভ আচরণ আশা করি। আমাদের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী পুলিশ বাহিনীর মধ্যে বিতর্ক সৃষ্টির চেষ্টা চলছে। অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার বিচার চাই। দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ চাই। ভোটারবিহীন নির্বাচন বাতিল করে সুষ্ঠু নির্বাচন দিন।'

 অধ্যাপক আবু সাইয়িদ বলেন, 'বঙ্গবন্ধু জাতির জনক। তার স্থান সবার উপরে। দুর্নীতিবাজ ও সন্ত্রাসীরা ব্যানার, ফেস্টুন ও বিলবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি ব্যবহার করে তাকে অসম্মান করছে।'