বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য তিনটি ডাইভিং বোট (ডুবুরিদের সহায়তাকারী জাহাজ) নির্মাণ করছে খুলনা শিপইয়ার্ড। বৃহস্পতিবার এর নির্মাণকাজের উদ্বোধন (কিল লেয়িং) করেন খুলনা নেভাল এরিয়ার কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আশরাফুল হক চৌধুরী।

জাহাজ তিনটি দিয়ে ডুবুরিদের অপারেশন্স এবং প্রশিক্ষণে সহায়তা করা ছাড়াও ডাইভিং ট্রিটমেন্ট ইত্যাদি নানাবিধ কার্যক্রমসহ নৌবাহিনীর সার্বিক অপারেশনাল কাজে সহযোগিতা করা হবে। জাহাজ তিনটির দৈর্ঘ্য ৩৮ দশমিক ৯ মিটার, প্রস্থ ৯০ মিটার, গভীরতা ২ দশমিক ২ মিটার। এর সর্বোচ্চ গতি ১৫ নটিক্যাল মাইল। আগামী দুই বছরের মধ্যে এর নির্মাণকাজ শেষ হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ফ্লোটিলা ওয়েস্টের কমান্ডার কমডোর আবদুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী ও খুলনা শিপইয়ার্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এম জাকিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রায় ৬২ বছর আগে যাত্রা শুরু করে খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড। ১৯৯৯ সালের ৩ অক্টোবর অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে শিপইয়ার্ডকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে খুলনা শিপইয়ার্ড শুধু লাভজনক প্রতিষ্ঠানই নয়, দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনতে অনন্য ভূমিকা পালন করছে। এরই মধ্যে দেশের মাটিতে পাঁচটি ছোট যুদ্ধজাহাজ (প্যাট্রল ক্রাফট) ও দুটি বড় যুদ্ধজাহাজ (লার্জ প্যাট্রল ক্রাফট) নির্মাণ করে নৌবাহিনীকে হস্তান্তর করেছে। এ ছাড়া ৭৩০টি জাহাজ নির্মাণ ও দুই হাজার ৩৮৩টি জাহাজ মেরামত করেছে। খুলনা শিপইয়ার্ডে নৌবাহিনীর জন্য আরও পাঁচটি প্যাট্রল ক্রাফট নির্মাণের কাজ চলছে।

মন্তব্য করুন