স্টাইলিশ সোয়েটার

প্রকাশ: ১৫ জানুয়ারি ২০২০       প্রিন্ট সংস্করণ

ফ্লোরিডা এস রোজারিও

শহরে জেঁকে বসেছে কনকনে শীত। তাই ঘর থেকে বের হতে হলে চাই বাড়তি কিছু প্রস্তুতি। সেই প্রস্তুতির নাম হলো 'সোয়েটার'। তারুণ্য সব সময় ফ্যাশনপ্রিয়, আর ফ্যাশন সচেতনও। তাই শীত কিংবা গ্রীষ্ম- সব ঋতুতেই তরুণরা বেছে নেয় তাদের মনমতো ট্রেন্ডি পোশাক। সেদিক থেকে এ বছর বাহারি ধরনের সোয়েটার গুরুত্ব পাচ্ছে তাদের কাছে সবচেয়ে বেশি। স্ট্রাইপ, প্রিন্ট, নতুন নতুন মোটিফের সংযোজনে সোয়েটার এখন বেশ জনপ্রিয় শীতবস্ত্র। ফেব্রিক, রং, বোতাম আর পকেটের ব্যবহারের ব্যাপারটা মাথায় রেখে তরুণরা তাদের পছন্দের ফ্যাশন পণ্যের দোকানগুলো থেকে সোয়েটার কিনছে।

ফ্যাশন ব্র্যান্ড সারার ফ্যাশন ডিজাইনার সিলভিয়া স্বর্ণা জানান, 'এখনকার তরুণরা রংকে খুব গুরুত্ব দিয়ে থাকে। তাই তাদের কথা মাথায় রেখে এবার বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে এসেছে বাহারি রঙের সোয়েটার।' শীতের প্রকোপভেদে ভারী, হালকা, ফরমাল, ক্যাজুয়াল, ফ্যাশনেবল সব ধরনের সোয়েটার এখন তৈরি করা হচ্ছে বলে জানান টুয়েলভের ফ্যাশন ডিজাইনার শুভাগত ভট্টাচার্য। তিনিও বলেন, 'আমরা রং এবং কাটিংয়ের ওপর বেশি গুরুত্ব দিয়েছি, কারণ আমাদের টার্গেট হচ্ছে তরুণরা। তাই গাঢ় হলুদ থেকে শুরু হয়ে গাঢ় মেরুন- সব ধরনের রং আমরা রেখেছি। প্যাটার্নের ক্ষেত্রে এবার আমরা অনেক নতুন জিনিস যোগ করেছি। যারা সারাদিনের জন্য বের হচ্ছে তাদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে যেন বারবার পোশাক পরিবর্তন করতে না হয়, তাই আমরা ড্রেস ডিজাইনের স্টাইলিশ সোয়েটার বের করেছি। ফলে সারাদিনের কাজের পর যদি কোনো পার্টিতে যেতে হয়, তবে এই সোয়েটারের সঙ্গে একটা মাফলার জড়িয়ে নিলেই হবে। তা ছাড়া বিভিন্ন ধরনের ফুলস্লিভ এবং হাফস্লিভ সোয়েটারও পাওয়া যাচ্ছে।'

গোল গলার সোয়েটার জনপ্রিয় সবসময়ই। কিন্তু এবার টারটল নেক ও হাই নেকের সোয়েটার বেশ নজর কাড়ছে সবার। আর বড় কলার, কোট কলার এবং শার্ট কলার ধরনের সোয়েটারও তরুণদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। হুডি স্টাইলের সোয়েটারও তালিকার বাইরে নয়। কারণ তরুণরা সব সময় হুডি বলতে অজ্ঞান। চাপা কিংবা আঁটসাঁট দুই ধরনের সোয়েটারই নজর কাড়বে এবার। পছন্দ অনুযায়ী তরুণরা ফুলহাতা ঢিলেঢালা সোয়েটারও পরছে, সঙ্গে মাথায় থাকছে কালারফুল টুপি, পায়ে পছন্দের কনভার্স জুতা। সোয়েটার যে এবার শীতে তরুণদের সেরা ফ্যাশন অনুষঙ্গ, সে ব্যাপারে হলিক্রস স্টু্কলের ছাত্রী সিনড্রেলা বলে, 'সোয়েটার আমার সবচেয়ে প্রিয়। কারণ শীত নিবারণের পাশাপাশি স্টাইলও করা যায়। তাই আমি এবার শীতে হুডি স্টাইলের সোয়েটার কিনেছি।' সোয়েটার এখন শুধু উষ্ণতার অনুষঙ্গ নয়, সঙ্গে ফ্যাশনের বড় একটি হাতিয়ার। সেটা লক্ষ্য করা যাবে শীতকালীন বিভিন্ন পার্টিতে গেলে। যারা শাড়ি পরতে ভালোবাসেন তারাও ব্লাউজের বদলে বোট নেক কিংবা হাই নেকের সোয়েটারের সঙ্গে দিব্যি জড়িয়ে নিচ্ছে পছন্দের শাড়িটি। ফলে রথ দেখা আর কলা বেচা দুটিই হচ্ছে একসঙ্গে।

এক সময় সোয়েটার বলতে সবাই বুঝত ভারী উলের শীতবস্ত্রকেই। কিন্তু তরুণদের রুচি আর ডিজাইনারদের চিন্তার ফলস্বরূপ পরিবর্তন এসেছে সোয়েটারে। আগে শুধু শীত নিবারণ করতে মানুষ ভারী জ্যাকেট কিংবা চাদরকে গুরুত্ব দিত সবচেয়ে বেশি। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনে মানুষ হয়ে উঠেছে আরও বেশি ফ্যাশনসচেতন এবং ট্রেন্ডিও। তাই উষ্ণতা দেওয়ার পাশাপাশি সোয়েটার এখন তরুণদের সেরা ফ্যাশন অনুষঙ্গও বটে। এক সময় বাজারে পাওয়া যেত শুধু ছেলেদের সোয়েটার। মেয়েদের সোয়েটার পাওয়া যেত না বললেই চলে। যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তন এসেছে ডিজাইনারদের নানা রকম নিরীক্ষার। তরুণরা কেমন পোশাকে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে, কোন রংকে কতটা গুরুত্ব দিচ্ছে, সে ব্যাপারে সব সময় চলছে গবেষণা। শীতকে ঘিরে সব সময় চলে ফ্যাশন বদলের খেলা। এই খেলায় এবার তরুণদের মনে যে সোয়েটার একটা বিশেষ স্থান দখল করে আছে, সে ব্যাপারে এখনও কোনো সন্দেহ নেই।

দরদাম:

শহরে শীতের প্রকোপ বাড়ার ফলে উপচে পড়ছে ক্রেতাদের ভিড়। তাই গাউছিয়া, নিউমার্কেট, চাঁদনী চক, এলিফ্যান্ট রোড ছাড়াও ফার্মগেট, বঙ্গবাজার, মিরপুর-১ গোলচত্বর, মিরপুর-১০ নম্বর এলাকায় ফুটপাতে ও ফ্যাশন পণ্যের দোকানগুলোতে বসেছে শীতবস্ত্রের পসরা। এসব জায়গায় বিভিন্ন দামের মনের মতো সোয়েটার আপনি পাবেন ৩৫০ থেকে এক হাজার টাকার মধ্যে। রিচম্যান, ক্যাটস আই, প্লাস পয়েন্ট, বিশ্বরঙ, ইয়েলো, লা-রিভ, সেইলরসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শোরুমে পাবেন এসব সোয়েটার। ফুলস্লিভ সোয়েটারের দাম ৮৫০ থেকে ২ হাজার ৯৫০ টাকার মধ্যে। সারাতে সোয়েটার পাবেন মাত্র ৮০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায়। টুয়েলভে বিভিন্ন ডিজাইনের সোয়েটার পাবেন ৭০০ থেকে ২ হাজার টাকার মধ্যে। এ ছাড়া শীত উপলক্ষে টুয়েলভ দিচ্ছে বিশেষ ছাড় ৭০ শতাংশ পর্যন্ত।

বিষয় : শীত ফ্যাশন