মাদারগঞ্জে স্ত্রী ও শিশুকে শ্বাসরোধে হত্যা, স্বামী আটক

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০২০   

মাদারগঞ্জ (জামালপুর ) প্রতিনিধি

জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় নিজ বাড়ি থেকে মোসলেমা অক্তার শিখা (২৫) নামের এক নারী ও তার ছেলে তাওহীদকে (৯) হত্যা করা হয়েছে। বুধবার ভোরের এ ঘটনায় ওই নারীর স্বামী হারুনুর রশিদ পলাশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

হারুনুর রশিদ পলাশ জানান, ওই দিন রাতে বাড়ির পাশেই বিলে মাছ ধরতে যান তিনি। ভোর রাতে বাড়িতে ফিরে স্ত্রী সস্তানের লাশ দেখতে পান। পরে তিনি বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জানান ।

এলাকাবাসী জানায়, স্বামীর অনৈতিক সম্পর্কের জেরে  মাঝে-মধ্যেই ঝগড়া লেগে থাকতো পরিবারে। পারিবারিক কলহের জেরে বুধবার ভোরে স্বামী পলাশের সঙ্গে স্ত্রী শিখার কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে পলাশ ক্ষিপ্ত হয়ে ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করলে শিশু ও তার মার মৃত্যু হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত মোসলেমা অক্তার শিখার ছোট ভাই খোকন জনান, রাত ৩টার দিকে দুলাভাই হারুনুর রশিদ পলাশ ফোনে তাকে জানায়, ‘তোমার বোন-ভাগ্নেকে কে যেন খুন করেছে।’

জামালপুর জেলা পুলিশ সুৃপার দেলোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে- তাদের শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তারপর কোন ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। বাড়ির রান্নাঘর থেকে রক্তাক্ত গেঞ্জি, লুঙ্গি, দা, বেড়িসহ বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য স্বামী হারুনুর রশিদ পলাশকে আটক করা হয়েছে। খুব শিগগিরই তদন্ত করে রহস্য উদঘাটন করা হবে।

মাদারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।