ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

অভাবে সন্তান বিক্রি করা শিল্পীর হাতে ঘরের চাবি

অভাবে সন্তান বিক্রি করা শিল্পীর হাতে ঘরের চাবি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৮ অক্টোবর ২০২৩ | ১৬:৩০ | আপডেট: ২৮ অক্টোবর ২০২৩ | ১৬:৩০

থাকার জায়গা-জমি ও বসতবাড়ি নেই শিল্পী-রায়হান দম্পতির। কখনও অন্যের বাড়িতে আবার কখনও ভাড়া বাড়িতে থাকেন। দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে কোনোমতে চলছিল সংসার। তবে সংসারে নতুন অতিথি আসার খবরে স্ত্রী-সন্তান ফেলে পালিয়ে যান রায়হান। ফলে কষ্টে ছিলেন শিল্পী। ঘর ভাড়া পরিশোধ করতে পারেননি কয়েক মাস।

গর্ভে সন্তান নিয়ে অনেক কষ্টে অন্যের বাড়িতে কাজ করে অর্ধাহারে-অনাহারে সন্তানদের লালনপালন করছিলেন শিল্পী। এরই মধ্যে দোকানে বাকি হয়ে যায় ছয় হাজার টাকা। বাধ্য হয়ে মাত্র ৩০ হাজার টাকায় সদ্য ভূমিষ্ঠ সন্তান বিক্রি করে দেন শিল্পী। খবরটি নজরে আসে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা প্রশাসনের। পরে তাঁকে আশ্রয়ণ প্রকল্পের একটি ঘর দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের বাতেনের মোড় এলাকায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের চাবি মায়ের হাতে তুলে দেন ইউএনও বেলায়েত হোসেন। একসঙ্গে বিক্রি করা সন্তানকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে সব ব্যবস্থা নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের গোয়ালপাড়া এলাকার রায়হানের স্ত্রী শিল্পী বেগম। গত ২৬ অক্টোবর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে সন্তান বিক্রির এ ঘটনা ঘটে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এক যুগ আগে বিয়ে হয় শিল্পী ও রায়হানের। অভাবের বিষয়টি জানতে পেরে গর্ভের সন্তান বিক্রির পরামর্শ দেয় দালাল চক্র। উপায় না পেয়ে ঋণের অর্থ ও ঘর ভাড়া পরিশোধ করতে সন্তান বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন শিল্পী। দালালের মাধ্যমে সন্তানহীন স্কুল শিক্ষিকা ও ব্যবসায়ী দম্পতি কিনেছেন শিশুটিকে।

ইউএনও বেলায়েত হোসেন বলেন, নবজাতক বেচাকেনা অপরাধ। বিষয়টি জানার পর অসহায় মাকে আশ্রয়ণের একটি ঘরের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। দ্রুত সময়ে মায়ের কোলে শিশুটিকে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

×