ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০২৪

জাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, মৌমিতা পরিবহনের ১৬ বাস আটক

জাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, মৌমিতা পরিবহনের ১৬ বাস আটক

ছবি: ফাইল

জাবি প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪ | ০৫:০২

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে চলাচলকারী মৌমিতা পরিবহনের বাসে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক ছাত্রীকে হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে গতকাল বুধবার মৌমিতা পরিবহনের ১৬টি বাস আটকে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা। হেনস্তার ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে লিখিত অভিযাগ দিয়েছেন।

অভিযাগে বলা হয়, মঙ্গলবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে টিউশনি শেষে সাভারের ব্যাংক টাউন থেকে মৌমিতা পরিবহনের একটি বাসে ক্যাম্পাসে ফিরছিলেন ওই ছাত্রী। কিছুক্ষণ পরে চালকের সহকারী (হেল্পার) ভাড়া চাইলে তিনি ১০০ টাকার একটি নোট দেন। খুচরা নেই বলে বাকি টাকা পরে ফেরত দেওয়ার কথা জানান তিনি। রেডিও কলোনির কাছাকাছি আসার পর যাত্রীদের নামতে বলে হেল্পার জানান, বাস আর যাবে না। এ সময় ওই ছাত্রী বাকি টাকা ফেরত চাইলে হেল্পার খারাপ ভাষায় কথা বলেন এবং বাজে ইঙ্গিত দেন। এতে ভীত হয়ে ওই ছাত্রী দ্রুত নামতে গেলে চালক বাস ছেড়ে দেন। এ সময় পড়ে গিয়ে তিনি পায়ে আঘাত পান। পরে ক্যাম্পাসে ফিরে সহপাঠীদের বিষয়টি জানান তিনি।

ভুক্তভোগীর বন্ধু প্রাণরসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সোহেল রানা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও আশুলিয়া থানার পুলিশকে নিয়ে গতকাল আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। ওই এলাকার সব সিসিটিভি ফুটেজ থাকলেও আশ্চর্যজনকভাবে ৬টা ১০ মিনিট থেকে ৬টা ১৮ মিনিট পর্যন্ত সময়ের কোনো ফুটেজ পাওয়া যায়নি। আটক রাখা এক বাসের চালক মোজাম্মেল ও হেল্পার বাবলু বলেন, সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বাস আটকাতে শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

সহকারী প্রক্টর মনির উদ্দিন শিকদার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন বাদী হয়ে মামলা করবেন। বিষয়টি সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত বাসগুলো আটক থাকবে।

প্রক্টর অধ্যাপক মোহাম্মদ আলমগীর কবির বলেন, শিক্ষার্থী ও পুলিশসহ আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে কিছু শনাক্ত করতে পারিনি। মৌমিতা পরিবহনের কর্তৃপক্ষকে দ্রুত ওই বাসের চালক ও হেল্পারকে শনাক্ত করে আমাদের জানাতে বলেছি। পুলিশও তাদের শনাক্তের চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন

×