জয়পুরহাটে ফের সেপটিক ট্যাংকে নেমে ২ শ্রমিকের মৃত্যু

প্রকাশ: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

সেপটিক ট্যাংকে নেমে অক্সিজেনের অভাবে মারা গেছেন দুই শ্রমিক

দেড় মাসের মাথায় আবারও সেপটিক ট্যাংকের সাটার খুলতে নেমে জয়পুরহাটে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। তাদের উদ্ধার করতে নেমে আরও এক শ্রমিক আহত হয়েছেন। 

সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পাঁচবিবি উপজেলার সালাইপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়রা আহত জাকারিয়াকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। 

নিহতরা হলেন-পাঁচবিবি উপজেলার সালাইপুর গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে মোহাম্মদ আলী এবং বাঁশখুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে নঈম ইসলাম। আর আহত জাকারিয়া সালাইপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। 

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পাঁচবিবি উপজেলার সালাইপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর বাড়িতে ৪/৫ জন শ্রমিক সেপটিক ট্যাংকের ছাদের নিচ থেকে কাঠ খুলতে যান। এ সময় দুই শ্রমিক ট্যাংকের ছাদের সাটারিংয়ের কাঠ খুলতে নিচে নামেন। ভেতরে পানি জমে গ্যাস হওয়ায় অক্সিজেনের অভাবে ওই দুইজন আহত হয়ে ট্যাংকের তলানিতে জমে থাকা পানিতে পড়ে যান। ওই অবস্থা দেখে তাদের ট্যাংক থেকে উদ্ধার করতে আরেক শ্রমিক নিচে নামেন। 

তারা অক্সিজেনের অভাবে ট্যাংকের ভেতরেই অজ্ঞান হয়ে পড়েন। ওই অবস্থায় শ্রমিক আমজাদ এবং নঈম মারা যান। আর জাকারিয়া নামে আরেক শ্রমিক আহত হন। 

ঘটনার পর পুলিশ ও স্থানীয়রা সেপটিক ট্যাংক থেকে দুই শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করে উপরে নিয়ে আসেন। 

পাঁচবিবি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুনসুর রহমান জানান, উপজেলার সালাইপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর বাড়িতে নতুন একটি পাকা টয়লেট নির্মাণ করছিলেন শ্রমিকরা। কয়েকদিন আগে ওই টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকের ছাদ ঢালায় দেন তারা। সোমবার ওই ঢালাইয়ের সার্টার খুলতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত শ্রমিক জাকারিয়াকে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এর আগে গত ৩১ জুলাই জেলার আক্কেলপুর উপজেলার জাফরপুর হিন্দুপাড়াতে সেপটিক ট্যাংকে নেমে ছয়জন নিহত এবং চারজন আহত হন।