যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক-উইচ্যাট নিষিদ্ধে নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার তিনি এই আদেশে সই করেন। নির্বাহী আদেশ জারির ৪৫ দিনের মাথায় এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। দুটি আদেশে টিকটকের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্স ও উইচ্যাটের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান ট্যানসেন্টের সঙ্গে লেনদেন বন্ধের আদেশ দেওয়া হয়। চীনভিত্তিক দুইটি টেক জায়ান্টের বিরুদ্ধে ট্রাম্প প্রশাসনের অভিযোগ, তারা চীনের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য পাচার করছে। খবর বিবিসির।

নির্বাহী আদেশে ট্রাম্প বলেন, টিকটকের সংগৃহীত ব্যবহারকারীদের তথ্য চীনকে যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি কর্মকর্তাদের ওপর নজরদারি চালানোর সুযোগ করে দেবে। সে সঙ্গে তারা মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ও কর্পোরেট কেলেঙ্কারি জন্য তথ্য হাতিয়ে নেবে।

বাণিজ্য যুদ্ধ, দক্ষিণ চীন সাগরের নিয়ন্ত্রণ, হংকংয়ে চীনের নিরাপত্তা আইন জারিসহ নানা বিষয় নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দুই দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে বিরোধ চলছে। তাছাড়া বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি ছড়িয়ে পড়ার জন্য চীনকে দোষারোপ করে আসছেন ট্রাম্প। পাল্টাপাল্টি বিরোধের জেরে গত মাসে চীনা অ্যাপ টিক টক বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেন তিনি। বৃহস্পতিবার নির্বাহী আদেশে সইয়ের মাধ্যমে তা কার্যকর করা হলো।

বাইটড্যান্স নামে একটি চীনা সংস্থার অ্যাপ এই টিক টক। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা ও আইনপ্রণেতারা অভিযোগ করে আসছেন টিক টক অ্যাপটিকে যুক্তরাষ্ট্রে গুপ্তচরবৃত্তির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। বাইটড্যান্স বরাবরই দাবি করে আসছে, তারা কোনও তথ্য চুরি করছে না। টিক টকের পক্ষ থেকে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের সিইও-র নেতৃত্বে চলে টিক টক। যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে এই অ্যাপের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে শতাধিক কর্মী। টিকটেকর একজন মুখপাত্র বলেন, তারা কোনও ডাটা চীনে পাঠায়নি, তাদের পাঠাতে বলাও হয়নি।