ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ

অতিথি তালিকায় নাম নিচে তাই প্রধান শিক্ষককে মারধর

অতিথি তালিকায় নাম নিচে তাই প্রধান শিক্ষককে মারধর

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৮:০০ | আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ০৭:৪৫

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ওয়াজ মাহফিলের আমন্ত্রণপত্র দিতে গিয়ে এক আওয়ামী লীগ নেতার 'চ্যালা'দের মারধরের শিকার হয়েছেন আবুল কালাম আজাদ নামের এক প্রধান শিক্ষক। গতকাল রোববার দুপুর ১২টার দিকে কাঞ্চন পৌরসভার মধ্যবাজার এলাকায় হামলার শিকার হন তিনি। ভুক্তভোগীর অভিযোগ, কাঞ্চন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল কলির সামনেই তাঁর 'চ্যালা'রা তাঁকে বেধড়ক মারধর করেন। তবে ওই নেতার দাবি, ছেলেপেলেদের উদ্দেশে 'উল্টাপাল্টা' কথা বলায় আবুল কালামকে চড়-থাপ্পড় দেওয়া হয়।

হামলার শিকার আবুল কালাম আজাদ উপজেলার হাটাবো টেকপাড়া এলাকার নূর ইসলামের ছেলে। তিনি সাত্তার জুট মিল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে কর্মরত।
আবুল কালাম বলেন, ২৩ ফেব্রুয়ারি হাটাবো টেকপাড়ায় একটি ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। বিশিষ্টজনকে আমন্ত্রণ করতে কার্ড ছাপানো হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীকের নাম রয়েছে। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি ও আমন্ত্রিত অতিথিদের নামও ছাপানো হয়েছে।

রোববার দুপুরে কাঞ্চন পৌরসভার মধ্যবাজার এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম রসুল কলিকে আমন্ত্রণপত্র দিতে যান ওই শিক্ষক। পত্র হাতে পেয়েই ক্ষেপে ওঠেন তিনি। এর কারণ জানতে চাইলে কলি ওই শিক্ষকের কাছে জানতে চান, 'অতিথি হিসেবে আমার নাম নিচে কেন?' এ সময় কলিসহ তাঁর সঙ্গে থাকা অন্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। সেখানে বাছির, লোহা শাহীন, মতিউর, মতিনসহ ১০-১২ জন আবুল কালাম আজাদকে কিল-ঘুসি ও চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে।

ওই শিক্ষকের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় স্থানীয় শিক্ষক সমাজসহ সচেতন মহলে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তাঁরা দ্রুত এ ঘটনায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দাবি করেন। অন্যথায় সড়ক অবরোধসহ বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁরা।

কাঞ্চন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল কলি এ বিষয়ে বলেন, 'দাওয়াত কার্ডে অতিথির নাম কোনো বিষয় নয়। আবুল কালাম আজাদ দাপট দেখিয়ে আমাদের ছেলেপেলের উদ্দেশে উল্টাপাল্টা কথা বলেন। তাই তাঁকে কয়েকটি চড়-থাপ্পড় দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।' সেখান থেকে তিনিই ওই শিক্ষককে ছাড়িয়ে দিয়েছেন বলে দাবি করেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ রোববার রাতে বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর ছোট ভাই আতাউল করিম দোলন বাদী হয়ে মামলা করেছেন। এতে ৭-৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও ৭-৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

×